জীবনের একটি সহজ সত্য হচ্ছে, গন্তব্যে পৌঁছতে হলে কাজ ফেলে না রেখে আমাকে ক্রমাগত এগিয়ে যেতে হবে। আমি লাগাতার কাজ করবো।

বর্জনীয়: সৌজন্যমূলক হাসির জবাবে গম্ভীর হয়ে থাকা।

আমার জীবনের মূল লক্ষ্য অর্জনের জন্যে আশু লক্ষ্যকে সিঁড়ি হিসেবে ব্যবহার করবো।

প্রতিটি সৎকর্মই সাদাকা বা দান। হাসিমুখে কথা বলা সাদাকা। ভালো কাজে উৎসাহিত করা সাদাকা। খারাপ কাজ থেকে বিরত রাখতে সচেষ্ট হওয়া সাদাকা। পথহারা মানুষকে পথ দেখানো সাদাকা। অসুস্থকে দেখতে যাওয়া সাদাকা। কাউকে পানি ঢেলে খাওয়ানোও সাদাকা।

দিনে ৪/৫ বারের বেশি চা/ কফি পান করলে শুধু দুবার এতে মিষ্টি নিন।

কথা শোনার ক্ষেত্রে তার প্রতি মনোযোগী হোন। বিরক্তি বা অস্থির ভাব প্রকাশ করবেন না।

আপ্যায়নে অতিরিক্ত খরচ করা।

মাদক বা ড্রাগসের প্রতি আকর্ষণ কঠোরভাবে দমন করুন। নেশাগ্রস্ত বন্ধুদের সাথে দ্রুত সম্পর্কচ্ছেদ করুন।

জল যেমন পদ্মপাতাকে সিক্ত করতে পারে না, তেমনি যিনি ঈশ্বরার্থে সকল কর্ম করেন, পাপ তাকে স্পর্শ করতে পারে না।

মস্তিষ্ক মানুষকে মানুষ বানায় নি, হৃদয় মানুষকে সত্যিকার মানুষ বানিয়েছে। আমার হৃদয় বিশ্বজনীন মমতায় পরিপূর্ণ। আমি অনন্য মানুষ।

যেখানেই ফেলে রাখা হোক সোনা সবসময় সোনাই থাকে। আমার অন্তর পরিষ্কার। অন্তরের আলো কুৎসার কালিমা দূর করে দেবে।

অন্যের দেবতাকে গালি দিও না।

আমি আমারই মতো সুন্দর! আমি অনন্য! আমি আমার মেধাকে শতধারায় বিকশিত করবো। অর্পিত মহান দায়িত্ব পালন করবো।

রাগ ক্ষোভ ঈর্ষা দুরারোগ্য ব্যাধি সৃষ্টি করে। আমি এগুলো থেকে মুক্ত থাকবো।

হে মহামহান! সর্বশক্তিমান! শঙ্কাহীন নির্ভীক! অমূলক ভয়-ভীতি, নেতিবাচক চিন্তা ও কথার প্রভাব ও প্রতিক্রিয়া থেকে আমাকে সবসময় মুক্ত রাখো। সাহসে বিশ্বাসে ইতিবাচক চিন্তায় ও কাজে আমাকে কর অনন্য। তুমি মহামহান! সর্বত্র বিরাজমান!

ফোন, আড্ডা, টিভি, ইন্টারনেট, গেমস, কমিকস, বাজে বই বা ক্ষতিকর বন্ধুত্ব সন্তানকে নষ্ট করবে। তাই সন্তানকে আমি পর্যাপ্ত সময় দেবো।

অনাকাঙ্ক্ষিত ব্যক্তির কল ধরতে না চাইলে একেবারেই রিসিভ করা থেকে বিরত থাকুন। তবে কল কেটে দেবেন না বা রিসিভ করে ওয়েটিংয়ে রাখবেন না বা বকাঝকা করে নিজের শান্তি নষ্ট করবেন না।

একজন অনন্য মানুষ ব্যতিক্রম ও অনন্যতাকে নিঃসন্দেহে শ্রদ্ধা করেন আর সেইসাথে জানেন- বিস্ময় সৃষ্টি করার শক্তি তার মাঝেও সুপ্ত রয়েছে।

প্রতিদিন খাবারে সালাদ খান। সালাদে লেটুস, টমেটো, ধনে পাতা, পুদিনা পাতা, গাজর, শশা, লাল বাঁধাকপি, কেপসিকাম ব্যবহার করুন।

বিশ্বাস করার আগে আমি সময় নেবো, যাচাই-বাছাই করবো। যখন বিশ্বাস করবো, পুরোপুরি করবো।

প্রতিপত্তি, সম্পদ ও সন্তান যেন তোমাদের আল্লাহর পথ থেকে গাফেল না করে। আমি যে জীবন উপকরণ দিয়েছি মৃত্যু আসার আগেই তা থেকে সৎ কাজে ব্যয় কর। তা না হলে মৃত্যুর মুখোমুখি হলে তুমি বলবে- হে আমার প্রতিপালক! আমাকে আরো কিছুকাল সময় দিলে না কেন? তাহলে আমি সৎকর্ম করতাম ও সৎকর্মশীলদের অন্তর্ভুক্ত হতাম। কিন্তু তোমাদের তখন আর কোনো সময় দেয়া হবে না।

চলন্ত গাড়ির চালকের সঙ্গে কথা বলবেন না।

যৌতুক গ্রহণ জঘন্য অপরাধ। আমি যৌতুক নেবো না। পরিচিতদের যৌতুক দেয়া বা নেয়া থেকে বিরত থাকতে উদ্বুদ্ধ করবো।

আমি বিশ্বাস করি, একজন শিক্ষার্থী হিসেবে ক্লাসে ১ম হওয়ার অনন্য যোগ্যতা ও গুণাবলি আমার আছে। নিজের শক্তি ও সামর্থ্যের প্রতি আমি সবসময় আস্থা রাখবো।

অফিসে ঠিক সময়ে আসবেন, কিন্তু বেরোনোর সময় নিজে ঠিক করবেন না। অফিস টাইম শেষ হলেও বস বের না হওয়া পর্যন্ত অফিসেই থাকুন।

সাবধান! তোমরা লোক দেখানো ধর্ম-কর্ম করো না। কারণ এর জন্যে স্বর্গে কোনো পুরস্কার পাবে না।

আজ পর্যন্ত পৃথিবীতে যা কিছু নিয়ে অহংকার করা হয়েছে, তা-ই তার পতনের কারণ হয়েছে।

মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে কথা বলতে হলে বাম হাতে নিন।

বাড়াবাড়ি সবসময় ক্ষতিকর। আমি প্রতিটি কাজে মধ্যপন্থা অবলম্বন করবো।

জামাতের সারিতে দাঁড়িয়ে গেলে ছোটদেরকে পেছনে পাঠিয়ে দেবেন না। তাদেরকে উদ্বুদ্ধ করতে প্রয়োজনে সামনের সারিতে দাঁড়ানোর আহবান জানান।

শিষ্টাচার, সুবিবেচনা, পরিমিতি ও মধ্যপন্থা অবলম্বন হলো নবুয়তের চবিবশ ভাগের এক ভাগ।

বিপরীত লিঙ্গকে আকৃষ্ট করার চেষ্টা স্মার্টনেস নয়, এটি পশুসুলভ প্রবণতা। প্রতিটি পশুই সহজাতভাবে বিপরীত লিঙ্গকে নিজের দিকে আকৃষ্ট করে। সত্যিকার স্মার্ট সে-ই যার আত্মপ্রত্যয় ও গুণাবলি স্বতঃস্ফূর্তভাবে তাকে চারপাশের মানুষের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করে।

প্রাণ ছাড়া দেহ যেমন মৃত, তেমনি কর্মবিহীন বিশ্বাসও মৃত।

সার্থক তাদের জীবন যারা ধর্মের জন্যে ক্ষুধা ও তৃষ্ণার কষ্ট সহ্য করে, কারণ তারা পরিতৃপ্ত হবে। সার্থক তাদের জীবন যারা দানশীল, কারণ তারা দয়া পাবে। সার্থক তাদের জীবন যাদের অন্তর নির্মল, কারণ তারা ঈশ্বরের দর্শন পাবে।

ভালো কথা বলার সুযোগ না থাকলে নীরব থাকুন। আর উৎসাহব্যঞ্জক কিছু বলার সুযোগ থাকলে নির্দ্বিধায় বলুন।

আমি ঠান্ডা মাথায় ভাবতে পারি, যেকোনো কষ্ট সইতে পারি। অবলীলায় অপেক্ষা করতে পারি। বিজয় আমারই।

আমি বর্তমানে মনোযোগী হবো এবং বাস্তবতাকে গ্রহণ করবো। বর্তমান বাস্তবতাই নতুন বাস্তবতা নির্মাণের উপকরণ আমার হাতে তুলে দেবে।

প্রাজ্ঞ ব্যক্তি কখনো নিন্দা বা প্রশংসায় প্রভাবিত হয় না।

আন্দাজ-অনুমান নয়, সব বিষয়ে আমি সবসময় নিশ্চিত হয়ে কথা বলবো।

নিজ প্রতিষ্ঠানের প্রাতিষ্ঠানিক গোপনীয়তা সবসময় রক্ষা করবো।

ব্যক্তিগত সমস্যার কথা এমন কাউকে বলুন, যাকে আপনি বিশ্বাস করেন, যিনি তা সমাধানে আপনাকে সহযোগিতা করতে পারবেন।

অনন্ত বা মহাজাগতিক সফরে কবর হলো প্রথম সোপান।

সফল ক্যারিয়ার || সাফল্যের সূত্র || সফল চাকরিজীবী হতে হলে || ১০

মেহমানের সঙ্গে আসা গৃহকর্মী বা কর্মচারীকেও সমমানের খাবার দিয়ে আপ্যায়ন করুন।

হাসিমুখে আপনার দায়িত্ব পালন করুন। বিরক্তিভাব কাজের বরকত নষ্ট করে দেয়।

সংশয়পূর্ণ কাজ (যা সুস্পষ্টভাবে বৈধ বা অবৈধ নয়) থেকে নিজেকে বিরত রাখাই উত্তম।

অমূলক ভয় ও শঙ্কা হচ্ছে ভূতের মতোই অলীক। আমি অলীকতা থেকে মুক্ত। আমি সাহসী। আমি নির্ভীক।

সন্তানকে আদব শিক্ষা দেয়া ভিক্ষুককে অনেক ভিক্ষা দেয়ার চেয়ে উত্তম।

যিনি কারো উদ্বেগের কারণ হন না, যাকে কেউ উদ্বিগ্ন করতে পারে না এবং যিনি হর্ষ বিষাদ ঈর্ষা ভয় উৎকণ্ঠা থেকে মুক্ত তিনি আমার প্রিয় ভক্ত।

সবসময় বিশ্বাস করুন যে, আপনি সুস্থ হবেন। সুস্থতার ব্যাপারে আশাবাদ নিরাময় প্রক্রিয়াকে বেগবান করে।

দৃষ্টিভঙ্গি

দৃষ্টিভঙ্গির ওপরই নির্ভর করে সাফল্য বা ব্যর্থতা। সঠিক দৃষ্টিভঙ্গি আপনাকে রক্ষা করবে হোঁচট খাওয়া থেকে। আপনি বেঁচে যাবেন ভুল করা থেকে। মনে থাকবে প্রশান্তি। সহজ স্বতঃস্ফূর্ততায় আপনি এগিয়ে যাবেন সফল জীবনের পথে।

পড়া হয়েছে [ 4,952 ]
প্রকাশিত হয়েছে: 31-Dec-2012 (সম:)

“কি বিছানা থেকে উঠবি?

পড়া হয়েছে [ 4,082 ]
প্রকাশিত হয়েছে: 30-Dec-2012 (রবি)

২০১২ সালের ২১ ডিসেম্বর ছিলো Mayan Calender এর শেষদিন। এদিন পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাবে বলে অনেক কথাবার্তা হয়েছে। সত্যি যে হয় নি তাতো বোঝাই যাচ্ছে।

পড়া হয়েছে [ 2,988 ]
প্রকাশিত হয়েছে: 22-Oct-2013 (Tue)

কলেজে পড়তে ভেবেছিলাম, জীবনের সব চাওয়া মনে হয় কোনো এক মানুষের কাছে –যাকে পেলে সবকিছু পাওয়া হবে; জীবন হবে সার্থক!

,
পড়া হয়েছে [ 1,088 ]
প্রকাশিত হয়েছে: 18-Apr-2013 (Thu)

বৈশাখের নতুন মেনু

,
পড়া হয়েছে [ 1,761 ]
প্রকাশিত হয়েছে: 14-Apr-2013 (রবি)

শুভ নববর্ষ। সূর্যোদয়ের মধ্য দিয়ে আর কিছুক্ষণের মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে বাংলা ১৪২০ সাল, একটি নতুন বছর। নতুন বছরের এই ক্ষণে সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা-স্বাগতম।

Pages

Warning: Do not remove form Invisible region.

by Tazim.