আমার মানবিক আবেগ শক্তিশালী হবে। সবার প্রতি সমমর্মিতার মনোভাব বাড়বে।

শেষ পর্যন্ত সবকিছুই আমার অনুকূলে আসবে। সেজন্যে আমি সবরের সাথে অপেক্ষা করবো।

সিঁড়ি বা লিফটে যথাসম্ভব নীরবে ওঠা-নামা করবো।

হে আল্লাহ! তুমি আমাদের রক্ষক! তুমি আমাদের ক্ষমা কর! দয়া কর! তুমিই সর্বোত্তম ক্ষমাকারী।

আজ যাদের সাথে দেখা হবে, তাদের জীবনে আমি ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবো।

সুখ আমার মৌলিক অধিকার। সঠিক দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণের ফলে আমি সুখ ও সমৃদ্ধির পথে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অগ্রসর হবো।

এখন যৌবন যার সেবক হওয়ার শ্রেষ্ঠ সময় তার। প্রথম যৌবনেই আমি সেবক হবো।

প্রতারিত হওয়া অসম্মানের। বোকামি ও লোভের ফাঁদে পড়ে মানুষ প্রতারিত হয়। আমি লোভ থেকে নিজেকে দূরে রাখবো। বোকামি থেকে সতর্ক থাকবো।

জরুরি প্রয়োজন ছাড়া অন্যের ব্যক্তিগত ফোন ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

আপনার সঙ্গে পদ-পদবী বা যোগ্যতার ব্যবধান থাকলেও প্রত্যেককে তার প্রাপ্য সম্মান দিন।

কোনো প্রশ্নের উত্তর সুনির্দিষ্টভাবে জানা না থাকলে তা নিঃসংকোচে স্বীকার করবো। মনগড়া বা ভুল উত্তর দেয়া থেকে বিরত থাকবো।

গানের বাণী ও সুর যা এখন শিখলাম, তা আমি হুবহু মনে রাখবো। বাদ্যযন্ত্র বাজানোর সময় আমার আঙুল অনায়াসে সঠিকভাবে চলাচল করবে। গান গাওয়া ও বাদ্যযন্ত্র বাজানোর সময় চমৎকারভাবে আমি আমার সহজাত সৃজনশীলতা, ঐকান্তিকতা, তাল-লয়ে সাবলীল দক্ষতা ও প্রকাশভঙ্গির নৈপুণ্য প্রদর্শন করবো।

কল্যাণচিন্তায় নিবেদিত না হলে অন্যায় ও অকল্যাণ আমাকে গ্রাস করবে। অন্যায় ও অকল্যাণের থাবা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্যে সবসময় কল্যাণচিন্তায় নিজেকে নিবেদিত রাখবো।

অন্যদের আগে খাওয়া শেষ হয়ে গেলে তাদের অনুমতি নিয়ে উঠুন।

দুরাচারী ব্যক্তির যেকোনো তথ্য আগে যাচাই করে নেবে। তাহলে ভুলবশত অন্যের ক্ষতি করে অনুতপ্ত হওয়া থেকে রক্ষা পাবে।

আমি নিয়মিত দমচর্চা করবো। ফলে আমার প্রাণবন্ততা ও কর্মস্পৃহা বাড়বে।

ওঠানামায় যেকোনো এক পাশ ব্যবহার করুন। পেছনের কারো তাড়া থাকলে প্রয়োজনে তাকে আগে যেতে দিন।

সবসময় জ্ঞানীদের সাথে চল, জ্ঞানী হবে। আর আহাম্মকের সঙ্গী হলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

প্রতিদিন আমার স্মৃতি তীক্ষ্ণ থেকে তীক্ষ্ণতর হবে।

বর্জনীয়: থুতু লাগিয়ে টাকা গোনা।

ঘন ডালের চেয়ে পাতলা ডালে উপকার বেশি।

আমরা এক মহান জাতি। বিশ্বের সেরা জাতিতে পরিণত হবো।

প্রতিদিন অন্তত কয়েক মিনিটের জন্যে হলেও রোগের মুখোশ ভেদ করে আপনার অন্তর্গত সত্তার সাথে সংযোগ স্থাপন করুন। তাহলেই দেখবেন নিরাময় প্রক্রিয়া ব্যাপক গতি লাভ করেছে।

ভ্রমণ পরিকল্পনা তৈরির জন্যে যেখানে যাবেন সে জায়গা সম্পর্কে কিছুটা পড়াশোনা করুন, অভিজ্ঞদের সাথেও আলাপ করুন।

বর্জনীয়: আন্তরিক হাত মেলানোর জবাবে হাত নির্জীব রাখা।

কোনো কারণে পৌঁছতে দেরি হলে ফোন করে উদ্যোক্তাদের জানিয়ে দিন।

বর্জনীয়: চাবি, কাঁচি বা যেকোনো কিছুকে অকারণে সঞ্চালন করে শব্দ সৃষ্টি করা।

যেকোনো বিষয়ে অতিরিক্ত প্রশংসা না করে বাস্তবসম্মত প্রশংসা করুন।

সাহসীরাই জীবনকে উপভোগ করতে পারে। আমি সাহসী। পরিপূর্ণ জীবন আমারই জন্যে।

জেদ বা অভিমান না করে যেকোনো যুক্তিসঙ্গত বিষয়ে মা-বাবা-অভিভাবককে বোঝাবো আন্তরিকতা ও শ্রদ্ধার ভাষায়।

মিথ্যাবাদী, ধর্মলঙ্ঘনকারী ও পরলোকে অবিশ্বাসী ব্যক্তি যেকোনো পাপ কাজ করতে পারে।

বিশ্বাস থেকে বিচ্যুতির প্রথম ধাপই হলো সংশয়। আমি আমার বিশ্বাসকে সংশয়মুক্ত রাখবো।

অন্য ক্রেতা দেখছেন এমন কিছু আপনার পছন্দ হলে সেটা না ধরে বিক্রেতাকে অতিরিক্ত আছে কি না জিজ্ঞেস করুন।

ঈর্ষা থেকে হৃদয়কে মুক্ত কর। সহিংসতা থেকে বিরত থাকো।

দলগত ভ্রমণে গিয়ে একা একা বা ঘনিষ্ঠ দুয়েকজনের সাথেই থাকবেন না। সবার সাথে মিশে আনন্দকে পরিপূর্ণ করুন।

বর্জনীয়: সৌজন্যমূলক হাসির জবাবে গম্ভীর হয়ে থাকা।

অনুমতি ছাড়া ক্লাসমেটের বই-খাতা-নোট ধরা ও দেখা থেকে বিরত থাকুন।

কর্মপ্রতিষ্ঠানের প্রতি কৃতজ্ঞ থাকবো। সেখানে আমার মূল্যায়ন না হলেও প্রাকৃতিক নিয়মেই আমি অন্যত্র পুরস্কৃত হবো।

আমার ইন্দ্রিয়, আমার প্রবৃত্তি, আমার মনের ওপর সবসময় আমার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ থাকবে।

কুক্ষিগত করে রাখলে অভাববোধ বাড়ে আর বিলিয়ে দিলে বাড়ে প্রাচুর্য। আমি প্রাচুর্যের পথেই অগ্রসর হবো।

অন্য বাসার গৃহকর্মীকে প্ররোচিত করে নিজের বাসায় নিয়োগ দেয়া থেকে বিরত থাকুন।

কর্মক্ষেত্রে সম্পর্কের জটিলতা বা ভুল বোঝাবুঝিকে ব্যক্তিগতভাবে না নিয়ে সবসময় সাংগঠনিকভাবে দেখুন।

আমি এখন নিজের জন্যে নতুন অভ্যাস গড়ে তুলছি। এ নতুন অভ্যাস আমাকে মুক্তির পথ দেখাবে, সামনে নিয়ে আসবে নতুন সুযোগ। আমি অর্জন করবো সত্যিকারের স্বাধীনতা।

অনন্ত বা মহাজাগতিক সফরে কবর হলো প্রথম সোপান।

দুধ-চায়ের পরিবর্তে লিকার চা বা সবুজ চা পান করবো।

সামাজিক মুখোশ নয়, অন্তর্গত শক্তিই হচ্ছে ব্যক্তিত্ব।

শব্দের মাঝে স্পেসসহ সঠিক বানানে সম্পূর্ণ ইংরেজিতে বা মাতৃভাষায় মেসেজ লিখুন। ‘বাংলিশ’ অর্থাৎ বাংলাভাষাকে ইংলিশ অক্ষরে লেখা থেকে পারতপক্ষে বিরত থাকুন।

দুঃখ মানুষকে নতুন উপলব্ধির সোপানে নিয়ে যায়। আমি আমার দুঃখকে এক অজেয় শক্তিতে রূপান্তরিত করবো।

আগে জানুন আপনি কেন বাঁচবেন। তাহলেই পারিপার্শ্বিক ক্ষতিকর প্রভাব থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবেন।

(নারী বা পুরুষ) প্রত্যেকেরই কর্ম অনুসারে তার মর্যাদা নির্ধারিত হবে।

প্রকাশনা

Warning: Do not remove form Invisible region.

by Tazim.