(পাবলিক বাসে) গায়ে হাত দিয়ে যাত্রী ওঠানো-নামানো থেকে বিরত থাকুন।

প্রোগ্রামের শুরুতে যে আসনে বসেছিলেন বিরতির পর সেখানেই বসুন। সামনের সারির চেয়ারের পেছনে পা তুলে দেবেন না।

পানি গ্যাস ও বিদ্যুৎসহ সবধরনের অপচয়ের বিরুদ্ধে পরিবারে আমি সচেতনতা সৃষ্টি করবো।

ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী রোগীর খাবার আনুন। অপ্রয়োজনীয় খাবার নেবেন না।

সকালে ভরপেট নাশতা করুন, দুপুরে তৃপ্তির সাথে খান আর সন্ধ্যার পর পরই রাতের হালকা খাবার গ্রহণ করুন।

রোগীর সেবায় দিন বা রাতের হিসেব না করে তার প্রয়োজনকে আগে গুরুত্ব দিন।

অর্থ-বিত্ত বা খ্যাতি নয়, সাফল্য ও প্রাচুর্য হলো মানসিক ও পারিপার্শ্বিক এমন অবস্থা যেখানে প্রতিটি যুক্তিসঙ্গত চাওয়া রূপান্তরিত হয় পাওয়ায়।

সাহসীরাই জীবনকে উপভোগ করতে পারে। আমি সাহসী। পরিপূর্ণ জীবন আমারই জন্যে।

অপ্রয়োজনীয় অনুশোচনায় সময় নষ্ট না করে ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে আমি যাত্রা করবো সম্ভাবনাময় ভবিষ্যতে।

রূপের কদর সাময়িক। গুণের কদর চিরন্তন। আমি গুণকে বিকশিত করবো। সর্বত্র আমি মর্যাদা পাবো।

আপনার অতিচেতনার সাথে সংযোগ স্থাপন করার জন্যেপ্রয়োজন নীরব মুহূর্ত। প্রতিদিন হাজারো কাজের ফাঁকেএই নীরব মুহূর্ত বের করে নিন।

তাত্ত্বিক শিক্ষা এক বছরে যা শেখায়, বাস্তব অভিজ্ঞতা একদিনে তার চেয়ে বেশি শেখায়।

তিনবার রিং বাজার আগেই ফোন রিসিভ করতে চেষ্টা করুন।

আমি প্রযুক্তিতে দক্ষ হচ্ছি। টেকনোটিয়ার (সফল প্রযুক্তিবিদ) হিসেবে সর্বত্র আমার সুনাম ছড়িয়ে পড়ছে।

বেতন বা পারিশ্রমিকের পরিমাণ প্রথমে প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে শুনুন। তারপর আপনার চাহিদার কথা বলুন।

আমার স্বপ্ন পূরণের ক্ষমতা ও সামর্থ্য নিহিত রয়েছে আমার ভেতরেই। আমি আমার এই ‘আমি’কে খুঁজে বের করবো।

আগে থেকেই ভাইভার জন্যে প্রয়োজনীয় প্রস্ত্ততি নিন।

কাজের স্বীকৃতি না পাওয়া। কাজের মূল কৃতিত্ব বসের হওয়া।

যেকোনো সমালোচনা আমি সহজভাবে নেবো ও উপকৃত হবো।

মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেশত।

হে নেতা! হে পুরোধা! ঈশ্বরের গুণাবলিতে গুণান্বিত হও।

শিক্ষকের কোনো আচরণ অভিনয় করে দেখানো, বিদ্রূপাত্মক নামে ডাকা থেকে বিরত থাকুন।

কারো মুখের ওপর শব্দ করে দরজা বন্ধ করে দেবেন না।

আগেই পুরো বেতন অগ্রিম প্রদান করবেন না। তার টাকার প্রয়োজন হলে কাজের অনুপাতে প্রাপ্য মজুরি পরিশোধ করুন।

রাগ-ক্রোধ-ক্ষোভ মস্তিষ্কে সেরোটনিনের প্রবাহ কমায় আর মেডিটেশন সেরোটনিনের মাত্রাকে বাড়িয়ে দেহ-মনে প্রশান্তি ও আনন্দ আনে। আমি নিয়মিত মেডিটেশন করবো।

সাধারণ মানুষ তার জৈবিক চাহিদার মধ্যেই সুখ খোঁজে। অগ্রসর মানুষ সুখ খোঁজে বুদ্ধিবৃত্তিক বিকাশে আর অনন্য মানুষ সুখ পায় আত্মিক অন্বেষায়। আমি অনন্য মানুষের পথে অগ্রসর হবো।

আমি জানি, আশাই একজন মানুষের শেষ সম্বল। আমি প্রত্যেকের আশাকে নতুন শক্তিতে উজ্জীবিত করবো।

বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে কমপক্ষে ১০/১২টি আসন করুন। পূর্ণ আহারের ৩/৪ ঘণ্টা পরে ব্যায়াম করুন।

লোকলজ্জার ভয় না করে সামাজিক অনুষ্ঠানে উপহার ছাড়াই আমি নিঃসংকোচে ও আনন্দচিত্তে অংশ নেবো। নিমন্ত্রণকারীর জন্যে দোয়া করবো।

প্রতিবেশীর সমস্যা হয় এমন শব্দে সিডি/ ক্যাসেট প্লেয়ার বা টিভি চালাবেন না।

কোথায় যাবেন তা পরিষ্কার করে বলুন ও ভাড়া ঠিক করে উঠুন।

যে সমস্যাই আসুক, সমস্যার অংশ না হয়ে আমি হবো সমাধানের অংশ।

গৃহকর্মীদের তা-ই খেতে দেবে যা তোমরা খাও। তা-ই পরতে দেবে যা তোমরা পর। তাদের সাধ্যের অতিরিক্ত কাজ দেবে না, দুর্ব্যবহার করবে না। অতিরিক্ত কাজ হলে নিজেরা সাহায্য করবে।

হিংসার জবাবে প্রতিহিংসা হিংসাকে আরো উসকে দেয়। অহিংসা ও ক্ষমাই পারে এ দুষ্টচক্রকে ভাঙতে।

তাদের সামনে পায়ের ওপর পা তুলে (ক্রস-লেগড্ হয়ে) বসবেন না। মেঝে/ কার্পেটে বসলে তাদের দিকে পা ছড়িয়ে দিয়েও বসবেন না।

আমার জীবনদৃষ্টি বা নিয়তই হলো আমার নিয়তি আর আমার নিয়ত কী হবে তা আমিই ঠিক করবো।

বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া অতিথিকে খাওয়ানোর আগে নিজেরা খাবেন না।

অপেক্ষমাণ অবস্থায় পেপার, ম্যাগাজিন পড়বেন না। মনকে পুরোপুরি ভাইভার মাঝে কেন্দ্রীভূত রাখুন।

ভ্রমণ পরিকল্পনা তৈরির জন্যে যেখানে যাবেন সে জায়গা সম্পর্কে কিছুটা পড়াশোনা করুন, অভিজ্ঞদের সাথেও আলাপ করুন।

পরিশ্রমজনিত দুর্বলতা কাটাতে কিংবা তাৎক্ষণিক এনার্জি পেতে ২/৩টি খেজুর খেয়ে এক গ্লাস পানি পান করুন।

অন্য কেউ রুমে থাকলে ক্যাসেট প্লেয়ার টিভি লাইট ফ্যান এসি ইত্যাদি চালানো কিংবা স্পিড ও ভলিউম বাড়ানো-কমানোর আগে তার অনুমতি নিন।

স্বামী-স্ত্রীর ভুল বোঝাবুঝিতে তৃতীয় পক্ষকে (আত্মীয়/ বন্ধু/ প্রতিবেশী) জড়াবো না। দুজনে সরাসরি কথা বলে সমস্যার সমাধান করবো।

নেতৃত্বের গুণগুলো অর্জন করুন। আপনি দক্ষ ব্যবস্থাপক হতে পারবেন।

ফোনে আপনাকে পান নি- এমন কাউকে সম্ভব হলে নিজেই ফোন করুন।

মানুষ অস্থিরচিত্ত। অনিষ্ট স্পর্শ করলে সে হা-হুতাশ করে আর সৌভাগ্য এলে স্বার্থপর কৃপণ হয়ে যায়।

লোভ হচ্ছে কঠিনতম রোগ, সংস্কার চরম দুঃখ, সুস্বাস্থ্য পরম লাভ, সন্তুষ্টি পরম ধন, বিশ্বাসই পরম বন্ধু, নির্বাণ পরম সুখ।

বেরিয়ে দরজা বন্ধ করুন, লাইট নেভান।

প্রভু হে! তুমি সকল ক্ষমতার মালিক। তুমি যাকে ইচ্ছা ক্ষমতা দান কর। যাকে ইচ্ছা ক্ষমতাচ্যুত কর। তুমি সৎ বিচক্ষণ দেশপ্রেমিক নেতৃত্বকে ক্ষমতা দাও। তুমি মুসলমান হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান আদিবাসী পাহাড়ি ধনী গরিব দল মত নির্বিশেষে সবার মধ্যে দেশপ্রেম জাগিয়ে দাও। আমাদের মেধাকে বিকশিত কর। জ্ঞান দক্ষতা ও প্রযুক্তিতে কর অনন্য। সমৃদ্ধি ও প্রাচুর্যে ভরিয়ে দাও আমাদের জীবন। আমাদের উন্নীত কর মানবিক মহাসমাজে, বিশ্বকে নেতৃত্ব দানকারী নৈতিক মহাশক্তিতে। তুমি সর্বশক্তিমান! ক্ষমতানিধান! দয়াময়! মেহেরবান!

সন্তান আমার কাছে স্রষ্টার আমানত। তাকে শিক্ষায় ও গুণে অনন্য মানুষরূপে গড়ে তুলবো।

বোকা ও দুর্বলরাই অভিমান ও অভিযোগ করে। আমি বুদ্ধিমান। অভিযোগের কারণ দূর করতে আমি বুদ্ধি ও কৌশল প্রয়োগ করবো।

প্রকাশনা

Warning: Do not remove form Invisible region.

by Tazim.